হুমকি উপেক্ষা করে শপথ নিচ্ছেন মোকাব্বির খান, অস্বস্তিতে বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের দিন জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিতে চেয়েছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত গণফোরামের নেতা মোকাব্বির খান। কিন্তু তারেক রহমানের চাপে তিনি সেদিন শপথ নিতে যান নি। তবে সকল চাপ ও প্রতিকূল অবস্থা পেরিয়ে শপথ নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মোকাব্বির খান।

এদিকে মোকাব্বির খানের এ শপথ গ্রহণের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, তারেক রহমানের হুমকিকে তোয়াক্কা না করে দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে শপথ নিচ্ছেন মোকাব্বির খান। এটি অবশ্যই সাহসী উদ্যোগ। বাংলাদেশের মাটিতে এমন সাহসী নেতাই প্রয়োজন। এর আগে এমন সাহস দেখিয়েছিলেন সুলতান মনসুর।

জানা যায়, গত ৬ ফেব্রুয়ারি ভোর ৫টার দিকে মোকাব্বির খানকে ফোন দিয়েছিলেন তারেক রহমান।  উক্ত ফোনে তারেক রহমান মোকাব্বিরকে বলেন, যদি প্রাণে বাঁচতে চান তবে শপথ নিতে যাবেন না।  এসময় তারেক রহমান তাকে ৫ কোটি টাকা ঘুষ দেয়ারও প্রস্তাব দেন। তারেক মোকাব্বির খানকে বলেন, দেশের মানুষ আপনাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে, তা ভিন্ন বিষয়।  কিন্তু আপনার শপথ নেবার প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়, বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন মেনে নিয়েছে। তাই আপনার উচিত হবে শপথ না নেয়া। আর যদি আমার নির্দেশ অমান্য করে এর পরেও আপনি শপথ নেন, তবে এর পরিণাম মোটেও ভালো হবে না।

তারেক রহমানের ফোন কলের পর খানিকটা নড়ে চড়ে বসেছিলেন মোকাব্বির খান। তিনি মানসিক ভাবে ভেঙে পড়ে শেষ পর্যন্ত ৭ মার্চে আর শপথ নিতে যান নি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে তিনি শপথ নিচ্ছেন।

তবে গুঞ্জন উঠেছে এই শপথ গ্রহণের সিদ্ধান্তের পর থেকে বিএনপি থেকে নানা প্রকারের হুমকি সহ্য করতে হচ্ছে মোকাব্বির খানকে। এ প্রসঙ্গে মোকাব্বির খান বলেন, ভয় করে রাজনীতি হয় না। সাধারণ মানুষ আমাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে। আমি তাদের মর্যাদা রাখবো। দেশের মানুষ সৎ ব্যক্তিদের ভোট দেয়। কোনো দুর্নীতিবাজকে ভোট দেয় না। আর এই কারণেই আমি জয়ী হয়েছি। আমি মানুষের নার্ভ বুঝেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কাজের মাধ্যমে আমি গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধা দেখাতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *