২০ দলীয় জোটের বৈঠক: শরিক দলের জোট ছাড়ার গুঞ্জনে বিচলিত বিএনপি

নিউজ ডেস্ক: প্রায় তিন মাস পর বৈঠকে বসতে যাচ্ছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। জোটের অচলাবস্থা দূরীকরণ, বেগম জিয়ার মুক্তি আন্দোলন জোরদার এবং সরকারবিরোধী আন্দোলনের চূড়ান্ত রূপ দিতেই এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে।

তবে ২০ দলীয় জোটের নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র বলছে, বেগম জিয়ার মুক্তি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া, ঐক্যফ্রন্টের খপ্পর থেকে বিএনপিকে রক্ষা করা এবং ২০ দলীয় জোটকে শক্তিশালী করে রাজপথ-মুখী করার মতো গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে এই বৈঠকে। গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে, বৈঠকেই ২০ দলীয় জোট থাকবে না ভেঙে যাবে সেটি নিয়েও সিদ্ধান্ত হতে পারে। এদিকে এমন গুঞ্জনে বিএনপির নেতারা নতুন করে চিন্তায় পড়েছেন বলেও জানা গেছে। বেগম জিয়ার মুক্তি নিয়ে লাগাতার কর্মসূচির মধ্যে শরিক দলগুলোর জোট ছাড়ার গুঞ্জনে বিএনপির রাজনীতিতে নতুন করে অস্বস্তি সৃষ্টি হয়েছে বলেও জানা গেছে।

এ বিষয়ে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল লেবার পার্টির সভাপতি ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, পরবর্তী রাজনৈতিক কার্যক্রমের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ায় এই বৈঠকের আয়োজন। তবে গুঞ্জন শুনছি যে, জোটের কয়েকটি ছোট দল বিএনপিকে ঐক্যফ্রন্ট থেকে বের হয়ে ২০ দলীয় জোটে মনোনিবেশ করার আহ্বান জানাবে। রাজি না হলে কমপক্ষে সাতটি দল জোট ত্যাগ করতে পারে একটি গুঞ্জন চাউর হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এই বৈঠকে বেগম জিয়ার মুক্তির বিষয়েও আলোচনা হতে পারে। আমি ব্যক্তিগতভাবে প্যারোলে মুক্তির পক্ষেই রায় দেব। চিকিৎসা নিয়ে তো রাজনীতি করাটা ঠিক না। দেশে যে অবস্থা চলছে তাতে বেশি কিছু বলাও সমীচীন হবে না।

তবে জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান বলছেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেন, বৈঠকে বেগম জিয়ার মুক্তি ও জোটের বর্তমান অবস্থার বিষয়ে আলোচনা হবে, এটাই স্বাভাবিক। আমি বলতে চাই, মুক্তি চেয়ে নিজেদের শক্তিশালী তথা জোটের শক্তি ও গতি ফিরিয়ে আনাটা গুরুত্বপূর্ণ। জোটের আন্দোলনকে মুক্তির আন্দোলনে সীমাবদ্ধ রাখতে চাই না আমরা। আগে অচলাবস্থা দূর করতে হবে এরপর ধীরে ধীরে মুক্তির আন্দোলনে যাওয়াটা সমীচীন হবে। ফাউন্ডেশন দুর্বল রেখে তো বহুতল ভবন নির্মাণ করা যায় না!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *