জোটের ভাঙ্গনের পরিস্থিতি তৈরি করেছে বিএনপি, বলছেন জোটের নেতারা!

নিউজ ডেস্ক : সংসদে যাওয়ায় দুই সপ্তাহের মধ্যে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ভাঙন প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) জোট ত্যাগ করার পর এবার জোটের অন্যতম দল লেবার পার্টি আল্টিমেটাম দিয়ে জোট ছাড়ার আভাস দিয়েছে। এদিকে, হঠাৎ ২০ দলীয় জোটে ভাঙ্গন শুরু হওয়ায় রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে নানা গুঞ্জন।

বিএনপির দীর্ঘকালীন হতাশাজনক রাজনীতিতে জোটের ভবিষ্যৎ অন্ধকার অনুধাবন করেই কেটে পড়ছেন জোটের নেতারা, এমন গুঞ্জনে ভারি হয়ে পড়েছে জোটের রাজনীতি। এও শোনা যাচ্ছে যে, ভিন্ন কোন প্রলোভনে পড়ে বিএনপিকে চাপে রাখার জন্যই এসব করছেন জোটের নেতারা। একাধিক রাজনীতি সচেতন ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে বিষয়গুলোর সম্পর্কে জানা গেছে।

এই বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাম রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এক রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, ২০ দলীয় জোটের টানাপড়েন শুরু হয়েছে নির্বাচনের পূর্ব থেকেই। সেটি প্রকাশ্যে আনলেন পার্থ ও ডা. ইরান। মূলত, ঐক্যফ্রন্ট গঠন নিয়ে ২০ দলের সঙ্গে টানাপড়েন শুরু হয় বিএনপির রাজনীতিতে।

তিনি আরো বলেন, ২০ দলকে ‘অন্ধকারে’ রেখে ঐক্যফ্রন্ট গঠনের মধ্য দিয়ে জোটের মধ্যে ফাটল ধরায় বিএনপি। যার অংশ হিসেবে পার্থ জোট থেকে বের হয়ে যান। যা হচ্ছে তার জন্য কেবল এবং কেবল মাত্র বিএনপির নেতৃবৃন্দ দায়ী।

ভাঙ্গনের জন্য বিএনপিকে দায়ী করে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাৎ হোসেন সেলিম বলেন, শপথ নিয়ে যে ঝামেলা শুরু হয়েছিল তা শেষ হচ্ছে জোট ভাঙ্গার মধ্য দিয়ে। ২০ দলকে উপেক্ষা করে ইচ্ছামতো সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। এর পর থেকে ২০ দলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি দেখে দলের আলোচনা করে আমরাও আমাদের সিদ্ধান্ত নিব।

তিনি আরো বলেন, ড. কামালকে অনুসরণ করে বিএনপি যে করুণ পরিণতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, সেটি কিন্তু দলটির নেতারা অনুধাবন করতে পারছেন না। সর্বস্বান্ত হয়ে যাওয়ার পরই হুশ ফিরবে বিএনপির। ততদিন মুখাপেক্ষী রাজনৈতিক দলে পরিণত হয়ে পড়বে বিএনপি। সুতরাং ইজ্জত বাঁচাতে হলে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে আমাদেরকেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *