নতুন করে নিবন্ধন বাতিলের শঙ্কায় বিএনপি!

নিউজ ডেস্ক : নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে দলের নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে- এমন ভয় কেটে গেছে বিএনপির। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিএনপি সে ভয় কাটলেও নতুন করে নিবন্ধন বাতিলের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। নির্বাচন পরবর্তী নির্ধারিত সময় পার হয়ে গেলেও নির্বাচনে দলীয় আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিতে না পারায় এমন আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

সময় শেষ হওয়ার পরেও আয়-ব্যয় হিসাব জমা দিতে না পারার বিষয়ে দলের একাধিক সূত্র বলছে, আয়-ব্যয় হিসাব নিয়ে দলের মধ্যেও এক ধরণের ঝামেলা শুরু হয়েছে। প্রকৃত হিসাব কেউই দিতে পারছেন না। এদিকে মনগড়া হিসাব দিতেও ভয় পাচ্ছে তারা। কেননা, বিএনপি আয়-ব্যয়ের যে হিসাব দেবে নির্বাচন কমিশন তা অনুসন্ধান করলে ফেঁসে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ নিয়ে দোটানার মধ্যে পড়ে আছে দলটির নেতারা।

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সে হিসেবে গত ৩১ মার্চ হিসাব জমা দেওয়ার সময়সীমা শেষ হয়ে গেছে। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের (আরপিও) ৪৪ সিসিসি ধারায় বলা আছে, প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে নির্বাচন শেষ হওয়ার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে তাদের নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব ইসিতে জমা দিতে হবে।

৪৪ ডি ধারায় বলা আছে, কোনো দল ৯০ দিনের মধ্যে ব্যয়ের হিসাব জমা দিতে না পারলে ইসি তাদের সতর্ক করে নোটিশ দিয়ে পরবর্তী ৩০ দিনের মধ্যে হিসাব জমা দেওয়ার নির্দেশ দিতে পারবে। এই সময়ের মধ্য কোনো দল হিসাব জমা দিতে ব্যর্থ হলে ইসি তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে হিসাব জমা দেওয়ার নির্দেশ দিতে পারবে। কোনো কারণে এই ধাপেও ব্যর্থ হলে ইসি সেই দলের নিবন্ধন বাতিল করতে পারবে।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ, রাজপথের বিরোধী দল বিএনপি, জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টিসহ নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলই এই নির্বাচনে অংশ নেয়। আইন অনুযায়ী, এসব দলের নির্বাচনী ব্যয়ের হিসাব ইসিতে জমা দেওয়ার সময়সীমা গত ৩১ মার্চ শেষ হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *