বুলু’র দাবার গুটি ছাত্রদল!

নিউজ ডেস্ক: আন্দোলন-সংগ্রামে বিএনপির মূল শক্তি হিসেবে বিবেচিত ছিল ছাত্রদল। সঠিক নির্দেশনার অভাবে বিএনপির ‘ভ্যানগার্ড’ খ্যাত সেই ছাত্রদল এখন নির্জীব হয়ে পড়েছে। এবার সেই নির্জীব ছাত্রদলকে কাজে লাগিয়ে দলে প্রভাব বিস্তার করতে উঠেপড়ে লেগেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু। বলা চলে ছাত্রদলকে দাবার গুটি হিসেবে ব্যবহার করছেন বুলু।

গোপন সূত্রের বরাতে জানা গেছে, বুলুর নির্দেশে কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার অজুহাতে ১১ই জুন সকাল সোয়া ১১টায় নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন ছাত্রদলের একাংশের নেতাকর্মীরা। বিএনপির কার্যালয়ে তালা লাগানোর ষড়যন্ত্রে বুলুর সঙ্গে আরো ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুর হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এবং প্রশিক্ষণ বিষয় সম্পাদক এবিএম মোশারফ হোসেন। মূলত এ চারজন নেতা চাচ্ছেন, ছাত্রদলকে ইচ্ছামতো নিয়ন্ত্রণ করে তারেক রহমান ও মির্জা ফখরুলকে হটিয়ে পুরো বিএনপির দায়িত্ব নিজ হাতে নিতে।

জানা গেছে, ছাত্রদলকে নিয়ন্ত্রণ করতে পিছিয়ে নেই মির্জা ফখরুলপন্থী ছাত্র নেতারাও। বুলুপন্থী ছাত্রদল নেতারা নয়াপল্টন কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে চাইলে তাদেরকে বাধা দেন মির্জা ফখরুলপন্থী ছাত্রনেতারা। এসময় তাদের সঙ্গে ছাত্রনেতাদের কমিটির বিষয়ে তর্ক-বিতর্ক ও সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটে।

বুলুপন্থী চার নেতা মির্জা ফখরুলপন্থী দোষারোপ করছেন করে বলছেন, তাদের ব্যর্থ নেতৃত্বের কারণেই ছাত্রদলসহ গোটা বিএনপির আজ এ অবস্থা। তাই নেতৃত্ব বদল করে বিএনপি সজীব করতে তৎপরতা শুরু করা হয়েছে। পরবর্তীতে ফখরুলপন্থী নেতারা তাদের ষড়যন্ত্রের বিষয়ে জানতে পেরে, তেলে বেগুনে জ্বলে উঠে বুলুপন্থী নেতাদের ঘাড় ধাক্কা দিয়ে পার্টি অফিস থেকে বের করে দেন।

এ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুলপন্থী এক ছাত্রদলের নেতার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ছাত্রদলকে হাত করতে কমিটি নিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির নামে নতুন নাটক করছেন বরকত উল্লাহ বুলু। তিনি মনে করেন, ছাত্রদল নেতাদের খেপিয়ে তুলে পুরো দলের দায়িত্ব তার কাঁধে নিতে পারবেন। এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। মির্জা ফখরুল সাহেব এসব বিষয়ে ওয়াকিবহাল আছেন। কেউ তার দায়িত্ব ছিনিয়ে নিতে আসলে আমরা তা শক্ত হাতে দমন করবো।

বিএনপি বর্তমান অবস্থায় হতাশা প্রকাশ করে এক রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, এই দুর্দিনে বিএনপির উচিত সংগঠিত থেকে কাজ করা। অথচ বিএনপির কিছু নেতা এখনো দলের ভেতরে অধিক ক্ষমতাবান হতে উঠেপড়ে লেগেছে। এটা খুবই দুঃখজনক। এমন চলতে থাকলে আগামী ১০ বছর পর বিএনপি নামক একটি দল ছিলো, তাও ভুলে যেতে পারে সাধারণ মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *