বিশাল লিডের পথে নিউজিল্যান্ড

হ্যামিল্টনের সেডন পার্কে বাংলাদেশের বোলারদের নিয়ে রীতিমত ছেলেখেলা করছে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। প্রতি ওভারেই একটি-দু’টি বাউন্ডারিতে যেনো টেস্টের মধ্যেই ওয়ানডে ব্যাটিং শুরু করে দিয়েছেন টম লাথাম, কেন উইলিয়ামসনরা।

উদ্বোধনী জুটিতে ২৫৪ রান করার পর দ্বিতীয় উইকেটেও অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ৭২ রান যোগ করে ফেলেছেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন এবং টম লাথাম। মাত্র ৩৬ বল থেকে ৩২ রান করে চা বিরতিতে গিয়েছেন উইলিয়ামস। ওপেনার লাথামের সংগ্রহ ১৫৬ রান।

অথচ বাংলাদেশ দল স্বস্তিটা পেতে পারত ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলেই। টেস্ট ক্রিকেটে নিজের দ্বিতীয় বলেই অভিষিক্ত এবাদত হোসেন স্লিপে ক্যাচ বানিয়েছিলেন কিউই ওপেনার টম লাথামকে। সেটি রাখতে পারেননি সৌম্য সরকার। জীবন পেয়ে যান লাথাম, অক্ষত থাকে উদ্বোধনী জুটি।

সে জুটি পরে খেলেছে আরও ৬৮.৩ ওভার। সবমিলিয়ে ৬৯.৫ ওভার! দীর্ঘ প্রায় পাঁচ ঘণ্টার এ জুটিতেই বাংলাদেশ দলের করা ২৩৪ রান টপকে গেছে স্বাগতিকরা। এগুতে শুরু করেছে বিশাল লিডের পথে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দ্বিতীয় দিনের চার বিরতি পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩২৬ রান। লিড এরই মধ্যে পৌঁছে গিয়েছে ৯২ রানে।

আগের দিনের অবিচ্ছিন্ন ৮৬ রানের জুটিটি দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় সেশনেরও প্রায় ঘণ্টাখানেক সময় পর্যন্ত টেনে নিয়েছেন দুই ওপেনার জিত রাভাল এবং টম লাথাম। পুরো বাংলাদেশ দল যেখানে খেলেছে ৫৯.২ ওভার, সেখানে ে দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানই ইনিংসে থেকেছেন ৬৯.৫ ওভার।

দুজনের জুটিতে আসে ২৫৪ রান। একপর্যায়ে যখন মনে হচ্ছিলো এ জুটি আর ভাঙা সম্ভব না তখনই বল হাতে জাদু দেখান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ইনিংসের ৭০তম ওভারে প্রথমবারের মতো আক্রমণে এসেই ফিরিয়ে দেন জিত রাভালকে।

শুরু থেকে দারুণ সচ্ছন্দ্যের সঙ্গে খেলছিলেন রাভাল। কিন্তু পার্টটাইমার রিয়াদ আক্রমণে আসার পর আর লোভ সংবরণ করতে পারেননি তিনি। স্লগ সুইপ করতে গিয়ে ধরা পড়েছেন মিড উইকেটে দাঁড়ানো খালেদ আহমেদের হাতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *