মাত্র ৫ মিনিটেই স্লিম হয়ে ওঠার কৌশল!

নিউজ ডেস্ক: অনেক সুন্দর সাজগোজ অনেক সুন্দর ড্রেসআপ নষ্ট করে দেয়ার জন্য আপনার পেটের মেদই যথেষ্ট। কিন্তু চাইলেই তো আর সাথে সাথে কমানো সম্ভব নয়। এমনটা আপনার মনে হলে আপনি খুব ভুল ভাবছেন। কিন্তু আপনি চাইলেই ৫ মিনিটে মেদ কমিয়ে স্লিম হয়ে উঠতে পারেন। কী ভাবছেন? ৫ মিনিটে স্লিম দেখানো কি সম্ভব? অবশ্যই সম্ভব, যদি আপনার জানা থাকে সঠিক কৌশল। একটু বুদ্ধি খাটালেই প্রতিদিনই আপনি হয়ে উঠতে পারেন আকর্ষণীয় ও সুন্দর, আপনার যে ওজন আছে ঠিক সেই ওজন নিয়েই। মনে রাখবেন, সৌন্দর্য আর কিছুই নয়, নিজেকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা মাত্র। চলুন, জেনে নিই এমন ১০টি কৌশল যেগুলো আপনাকে প্রতিদিনই করে তুলবে স্লিম ও স্মার্ট। এবং এগুলোর কোনটাই করতে ৫ মিনিটের বেশি সময় লাগবে না আপনার।

১. আপনি কেমন মোটা, কতো বেশি আপনার ওজন এসবে কিছুই যায় আসে না যদি আপনাকে দেখতে ভালো লাগে। দেখতে ভালো লাগার জন্য প্রথমেই নিজের শরীরের ভাঁজ বা বাড়তি মেদগুলোকে দেখে ফেলুন। খুব বেশি টাইট কোনো কাপড় বা খুব পাতলা কাপড় পরিধান করবেন না। এতে আপনার ভাঁজগুলো বিশ্রীভাবে দেখা যাবে। এমন পোশাক পরিধান করুন যেটা গায়ে চেপে বসে না আবার খুব ঢিলেঢালাও নয়।

২. পোশাক পরুন এক রঙের। সালোয়ার ও কামিয বা শার্ট-প্যান্ট সবই এক রঙের পরলে দেখতে দারুণ স্লিম লাগে। ওজন কমে প্রায় অর্ধেক দেখা যাবে। বৈচিত্র্য আনতে রঙিন টাই বা ওড়না ব্যবহার করুন। খুব মোটা মানুষদের ক্ষেত্রে এই টেকনিক দারুণ কাজে দেয়।

৩. জিনসের প্যান্ট বা যেকোনো প্যান্ট পড়লে এমন প্যান্ট পরুন যেটার পেছনের পকেটগুলো বড় বড় এবং দুটো পকেট পরস্পরের কাছে। এটা আপনার হিপ দেখাবে একদম স্লিম।

৪. মোটা মানুষেরা চুলে কখনো রঙ করবেন না। করতে চাইলেও চুলের গোঁড়ায় কখনোই রঙ করবেন না এবং খুব বেশি হালকা রঙ দেবেন না। গাঢ় রঙের চুল এমনভাবে কাটুন যেন মুখের দুইপাশে পড়ে থাকে, এতে আপনার মুখটা এমন স্লিম দেখাবে।

৫. চুল উঁচু করে টানটান পনিটেইল করতে পারেন, এতেও মুখ লম্বাটে দেখাবে। ফলে ওজন কম মনে হবে। এছাড়া মাথার উপরে চুল একটু ফুলিয়ে তবেই বাঁধুন। এতেও আসবে স্লিম লুক।

৫. কখনো আড়াআড়ি ডোরা কাটা বা আড়াআড়ি ডিজাইনের কিছু পরবেন না ভুলেও। এতে আপনাকে অনেক বেশী চওড়া ও মোটা দেখাবে। লম্বালম্বি ডিজাইনের যেকোনো পোশাক নিয়ে আসবে স্লিম লুক।

৬. সম্ভব হলে একটুখানি উঁচু জুতো পরুন। কয়েক ইঞ্চি লম্বা দেখালে ওজন অনেকটাই কম মনে হবে। উঁচু পরতে না চাইলে ফ্ল্যাটি পরুন তবে খুব ঝলমলে ও রঙিন জুর পরবেন না। জুতোর রঙ রাখুন স্কিন টোনের কাছাকাছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *