অফিস অটোমেশন ও এপিএএমএস সফটওয়্যারের ব্যবহার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে আরেক ধাপ এগিয়ে নিবে: মহাপরিচালক, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর 

অফিস অটোমেশন ও এপিএএমএস সফটওয়্যারের ব্যবহার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে আরেক ধাপ এগিয়ে নিবে: মহাপরিচালক, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর 

স্টাফ রিপোর্টার: নওগাঁ জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে নওগাঁ সার্কিট হাউস মিলনায়তনে গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের তথ্য কর্মকর্তাদের নিয়ে অফিস অটোমেশন ও এপিএএমএস সফটওয়্যারের ব্যবহার সংক্রান্ত দুই দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু হয়।
গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ জসীম উদ্দিন প্রধান অতিথি হিসেবে ওয়েবিনারের মাধ্যমে সংযুক্ত হয়ে কর্মশালা উদ্বোধন করেন। 
গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের পরিচালক মোঃ তৈয়ব আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে প্রচার কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ ওমর ফারুক দেওয়ান, রাজশাহী জেলা তথ্য অফিসের পরিচালক মোঃ ফরহাদ হোসেন, উপপরিচালক নাফেয়ালা নাসরিন, গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ মনির হোসেন, শুকলা বনিক বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। 
কর্মশালায় রাজশাহী ও রংপুর  বিভাগের সকল জেলার তথ্য কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন। নওগাঁ জেলা তথ্য অফিসার আবু সালেহ মোঃ মাসুদুল ইসলাম কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহাপরিচালক বলেন, অফিস অটোমেশন ও এপিএএমএস সফটওয়্যারের ব্যবহার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের কাজ আরেক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে। তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল গ্রহণ করে সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম শক্তিশালী করতে হবে। বিশেষত সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও ধর্মীয় সম্প্রীতি ইত্যাদি নিয়ে প্রান্তিক পর্যায়ে ব্যাপক গণসচেতনতা তৈরি করতে হবে। জনাব মোঃ জসীম উদ্দিন বলেন, ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের সাথে তাল মিলিয়ে প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে চালিয়ে নিতে অফিস ব্যাবস্থাপনা অটোমেশনের বিকল্প নেই। প্রশাসন ব্যবস্থায় গতিশীলতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে অটোমেশন ও এপিএএমএস সফটওয়্যার দ্রুত সময়ে চালু করতে তিনি অনুরোধ করেন।

কর্মশালায় জানানো হয়, অফিস অটোমেশন সরকারি কাজে গতিশীলতা আনবে ও দুর্নীতি প্রতিরোধে সহায়ক হবে। এর ফলে অফিসে শুদ্ধাচার প্রতিষ্ঠিত হবে। সকল কর্মকর্তা, কর্মচারী ও অফিস ইকুইপমেন্ট এর ডাটাবেইজ তৈরিতে এ পদক্ষেপ যুগান্তকারী ভূমিকা রাখবে বলে কর্মশালায় উল্লেখ করা হয়।