নির্বাচনে ৩০০ কোটি টাকার বাণিজ্য করেছিলেন তারেক রহমান, জানালেন খালেদা জিয়া

নিউজ ডেস্ক: দুর্নীতির দায়ে কারান্তরীণ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানান্তরিত করার পর রাজনৈতিক বিষয়ে নানা প্রকারের মন্তব্য করা শুরু করেছেন।

সম্প্রতি ঈদের আগে বেগম খালেদা জিয়া তার নেতাকর্মীদের কাছে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে একটি বার্তা পাঠিয়েছিলেন। ওই বার্তায় তিনি ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন সম্পর্কে চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্যও প্রকাশ করেছেন বলে বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে।

বেগম খালেদা জিয়ার এই বার্তায় দলের মধ্যে অনৈক্য দূর করে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যেকোনো পরিস্থিতি এবং ষড়যন্ত্র মোকাবিলার জন্য দলের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন। তবে জেল থেকে পাঠানো ওই বার্তায় খালেদা জিয়া অভিযোগ করেছেন যে, সংসদ নির্বাচনে ৩০০ কোটি টাকার বাণিজ্য হয়েছে। মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সঙ্গে অন্তত ৩০০ কোটি টাকার লেনদেন হলেও কোনো আন্দোলন কর্মসূচিকেই ওই অর্থ দিয়ে এগিয়ে নেয়া কেন হচ্ছে না তা জানতে চেয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বেগম খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমান। ওই নির্বাচনে মনোনয়নের চূড়ান্ত তালিকা তৈরি করেছিলেন তারেক রহমান। যা থেকে তিনি অন্তত ৩০০ কোটি টাকা বাণিজ্য করেছেন। কিন্তু সে অর্থের কোনো হিসাব নেই কেন তাও জানতে চেয়েছেন খালেদা জিয়া। এমন প্রেক্ষাপটে সমালোচনা উঠেছে, কিছুদিন ধরে খালেদা জিয়া কারাগার থেকে যেসমস্ত কথাবার্তা বাইরে প্রকাশ করছেন বা তার চিকিৎসকদের যেসমস্ত কথাবার্তা বলছেন, তাতে স্পষ্ট হচ্ছে যে, খালেদা জিয়া তার বন্দিত্বের জন্য তারেক রহমানকে দায়ী করছেন। সরকারের সঙ্গে তারেকের গোপন আঁতাতের মাধ্যমে এই সরকারকে বৈধতা দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি সন্দিহান।

বেগম খালেদা জিয়ার ঘনিষ্ঠসূত্রগুলো বলছে, ৫ জন সংসদ সদস্য সংসদে শপথ নেওয়া এবং বগুড়া উপনির্বাচনে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতেই বেগম খালেদা জিয়া তার ছেলেকে আসামির কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন।

খালেদা জিয়া তার অন্যতম ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. মামুনের কাছে বলেছেন যে, বিএনপিকে মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে নির্বাচনে নেওয়া হয়েছে এবং এই সরকারকে বৈধতা দেওয়ার জন্য বাধ্য করা হয়েছে। তবে কারা কিভাবে টাকা দিয়েছে এ ব্যাপারে ডা. মামুনকে বেগম খালেদা জিয়া কিছু বলেননি। তিনি শুধু এটা বলেছেন যে, শুধু একজন নয়, সরকারের সঙ্গে গোপন সমঝোতা এবং গোপন আঁতাতে একাধিক ব্যক্তি জড়িত। তারা কারা, তাদের নামও তিনি প্রকাশ করেনি। তবে বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, তিনি খুব শিগগিরই তা প্রকাশ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *